নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার পদ্ধতি | জেনে নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম ও সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে: প্রযুক্তি এখন হাতের মুঠোয়। আর তাইতো সময়ের সাথে সাথে এসেছে পরিবর্তন। আগে অর্থ লেনদেনের জন্য সরাসরি যাতায়াতের প্রয়োজন পড়তো, অথচ এখন ডিজিটাল লেনদেন সেবা বিভিন্ন ডিজিটাল প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সম্পন্ন হচ্ছে। সুপ্রিয় পাঠকবৃন্দ, আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদেরকে খুব সহজেই জানিয়ে দেবো নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার পদ্ধতি সম্পর্কে।

কেননা এটা সবাই কমবেশি জেনে থাকবেন, ডাক বিভাগের ডিজিটাল লেনদেন সেবা নগদ। আর এর মাধ্যমে খুব সহজেই একাউন্ট খোলার মাধ্যমে বেশ কিছু সুযোগ সুবিধা ভোগ করা যায়। তবে আজকের আর্টিকেলের মূল উদ্দেশ্য নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম। তাহলে আসুন শুরু করা যাক।

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট কি?

প্রথমেই জেনে নেওয়া প্রয়োজন নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট বলতে আসলে কি বোঝায়। দেখুন ইতিমধ্যে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে নগদ অ্যাকাউন্ট খোলার পদ্ধতি এবং নগদ পার্সোনাল একাউন্ট খোলার পদ্ধতি সম্পর্কে দুইটি আর্টিকেল পাবলিশ করেছি। আর আজকে জানব নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার সহজ পদ্ধতি সম্পর্কে। তাই যদি আপনাদের বাকি দুইটি সম্পর্কে ধারণা না থেকে থাকে তাহলে আমাদের দেওয়া লিংকে গিয়ে পড়ে ফেলতে পারেন।

দেখুন আপনি যদি একাউন্টের মাধ্যমে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করতে চান তাহলেই মূলত নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট খোলার প্রয়োজন পড়বে। কেননা নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট খোলার মাধ্যমে আপনি নগদ একাউন্টের মাধ্যম কে কেন্দ্র করে আপনার ব্যবসায়িক কার্যক্রম খুব সহজেই সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন এবং এর দ্বারা আপনি বেশ কিছু মুনাফিক উপভোগ করার সুযোগ পাবেন। তাহলে নিশ্চয়ই নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট বলতে কী বোঝাচ্ছে তাই তো মধ্যে আপনারা বুঝে গেছেন।

আসুন আর একটু সহজভাবে বলা যাক। মনে করুন, আপনি কোন একটা বিষয় খুঁজে পেয়েছেন যার মাধ্যমে ব্যবসা করে আপনি নিজে নিজে সাবলম্বী হবেন এবং নিজেকে একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে সবার সামনে তুলে ধরবেন। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে আপনার হাতে তেমন কোন টাকা পয়সা নেই। কিন্তু এই মুহূর্তে টাকা-পয়সা না থাকা সত্ত্বেও আপনি নিজেকে উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে একটু একটু করে এগিয়ে যেতে সক্ষম হবেন নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে।

কেননা আপনার যদি নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করা থাকে তাহলে সেখান থেকে আপনি নির্ধারিত কিছু সময়ের জন্য মুনাফা অর্জন করতে পারবেন, যা আপনার ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে কাজে লাগানো সম্ভব হবে। সুতরাং নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট হচ্ছে সেই অ্যাকাউন্ট, যে বা যারা উদ্যোক্তা হিসেবে আগানোর জন্য নগদ এর কাছ থেকে কিছু শর্ত পূরণের মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে পারে। এবার আসুন দ্বিতীয় পর্যায়ে জেনে নেই, আপনি নগদ উদ্যোক্ত একাউন্ট কেন খুলবেন?

Download Nagad App NAGAD

https://youtu.be/MTywtJvukZE

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার কারণ

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট কেন খুলবেন বা এর কারণ কি, সেটা নিশ্চয়ই আপনি জানবেন। কেননা আপনার প্রয়োজনেই আপনি নগদ উদ্যোক্ত অ্যাকাউন্টটি ক্রিয়েট করবেন। তবে যারা জানেন না তাদের উদ্দেশ্যে বলা, আপনি মূলত নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট খুলবেন এই কারণে যদি আপনি নগদ একাউন্টের মাধ্যমে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করতে চান এবং নগদ একাউন্ট ব্যবহার করার মাধ্যমে কিছু কমিশন পেতে চান।

আর এই নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট মূলত এজেন্ট দের জন্য। কেননা উদ্যোক্তা শব্দটি মূলত নগদ তার এজেন্টদের জন্য সম্মোধন করে থাকে। সুতরাং আপনি যদি কমিশন গ্রহণ করতে চান বা এজেন্ট হয়ে আয় করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনার অবশ্যই একটা অ্যাকাউন্ট লাগবে আর সেই অ্যাকাউন্টই হবে নগদ উদ্যোক্ত অ্যাকাউন্ট। আর এটি এমন একটা অ্যাকাউন্ট যাকে কেন্দ্র করে সাধারণ গ্রাহকরা বিভিন্ন প্রকার সেবা গ্রহণ করতে সক্ষম হয়। 

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কি কি?

যে কেউ যদি নগদ অ্যাকাউন্ট খুলতে চায় তাহলে অবশ্যই বেশ কিছু ডকুমেন্ট এর প্রয়োজন পড়ে। ঠিক একইভাবে আপনি যদি নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট খুলতে চান তাহলে আপনার একাউন্ট করার জন্য বেশ কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের দরকার পড়বে। তাই নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার পদ্ধতি ও সবচেয়ে সহজ নিয়ম জানার পূর্বে যেনে নেওয়াটা প্রয়োজন যে, একটি নগদ উদ্যোক্তা এখন খোলার জন্য কোন সমস্ত ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হয়? তাহলে আসুন এ পর্যায়ে সবার প্রথমে সেটাই জেনে নেই।

  • একটি দোকান
  • সেই দোকানের ট্রেড লাইসেন্স
  • রেজিস্ট্রেশন করার জন্য ন্যাশনাল আইডি কার্ড/পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং যেকোনো সত্যায়িত একটি পরিচয় পত্রের কপি
  • মূলধন

অনেকেই হয়তো নগদ একাউন্ট ক্রিয়েট করার ক্ষেত্রে মূলধনের ব্যাপারটা সম্পর্কে খুব একটা ক্লিয়ার নয়। কেননা অনেকেই জানেনা প্রথমদিকে অ্যাকাউন্ট মেন্টেন করার জন্য খুব বেশি পরিমাণে মূলধনের প্রয়োজন পড়ে।

তবে হ্যাঁ চিন্তার কোন কারণ নেই পরবর্তীতে সেই টাকার অংক পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব হয় যখন আপনার অ্যাকাউন্ট তৈরি করার কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যায় তখন আপনি ওই অ্যাকাউন্ট দ্বারা যখন লেনদেন কাজ সম্পন্ন করতে পারেন ঠিক তখন। মূলত কাস্টমারের কাছ থেকে টাকা কালেক্ট করার মাধ্যমে আপনার সেই মূলধন বা টাকার অংক পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়।

এটা সত্যি যে নগদে অন্য কোন অ্যাকাউন্ট খুলতে কোন রকমের টাকা বা ফ্রি প্রদান করতে হয় না। তবে এই সকল ডকুমেন্ট এর পাশাপাশি অবশ্যই যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চাচ্ছেন সেই ব্যক্তির দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের নতুন রঙিন ছবি প্রয়োজন পড়বে। 

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার পদ্ধতি নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার সহজ নিয়ম

আপনার কাছে যদি একাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট থেকে থাকে তাহলে শুধুমাত্র আমাদের দেওয়া নির্দেশনা অনুসরণ করলে আপনি খুব সহজেই নগদ উদ্যোক্ত অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করে ফেলতে পারবেন। তাই নগদ এজেন্ট অ্যাকাউন্ট বা নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট খুলতে অনেক বেশি আগ্রহী হয়ে থাকলে আমাদের স্টেপ গুলো অনুসরণ করুন আর খুব সহজে খুলে ফেলুন নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট। 

প্রথমত: আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনটিতে নেট কানেকশন চালু করুন।

দ্বিতীয়তঃ প্লে স্টোরে প্রবেশ করুন

তৃতীয়তঃ নগদ উদ্যোক্তা অ্যাপ লিখে সার্চ করুন

চতুর্থত: গুগলের সাজেস্ট করা নগদ উদ্যোক্তা অ্যাপটি ইন্সটল করুন। 

বিশেষ দ্রষ্টব্য: আপনি মূলত নগদ উদ্যোক্তা বা এজেন্ট একাউন্ট অ্যাপসটি প্লে স্টোর ও অ্যাপেল স্টোর দুই স্থানে পেয়ে যাবেন।

পঞ্চমত: ইনস্টল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে আপনি ওই অ্যাপটি চালু করুন। মানে অ্যাকাউন্ট একটিভ করুন।

ষষ্ঠমত: আপনার নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্টটের সাথে সংশ্লিষ্ট নাম্বারটি দিয়ে অ্যারো বাটনে ট্র্যাপ করুন। 

এ পর্যন্ত কাজ করলে আপনি খুব সহজেই বুঝতে পারবেন যে আপনার নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট চালু হয়েছে কি না। যদি না হয়ে থাকে তাহলে এজেন্ট অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য নগদের যে সমস্ত নগদ সেবা অফিস রয়েছে সে সমস্ত নগদ সেবা অফিসে চলে যান এবং তাদের পরামর্শ গ্রহণ করুন। আপনি চাইলে আমাদের সাজেস্ট করা এই দুইটি লিংক ভিজিট করতে পারেন।

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট এর সুবিধা সমূহ

আমরা এটা সম্পর্কে প্রায় সবাই অবগত যে বর্তমানে বিকাশের সাথে নগদ তাল মিলিয়ে এগিয়ে চলেছে। আর এর অন্যতম কারণ তাদের সেবা। তাই এ পর্যায়ে অবশ্যই নগদ উদ্যোক্তায় একাউন্টের কি কি সুবিধা সমূহ রয়েছে তার সম্পর্কে জেনে নেওয়াটা জরুরী। তাহলে আসুন এ পর্যায়ে জেনে নেই নগদ এজেন্ট অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করার মাধ্যমে তারা মূলত কি কি সুযোগ সুবিধা প্রদান করে থাকে।

  • মোবাইল রিচার্জ
  • অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট
  • বিল পেমেন্ট
  • নগদ মুনাফা অর্জন
  • ট্রানজেকশন ডিটেলস
  • সেন্ট মানি এবং ক্যাশ ইন
  • নির্দিষ্ট পরিমাণ cash in করার কাজ সম্পন্ন করার জন্য মুনাফা অর্জন

সত্যি বলতে নগদ এজেন্ট বা উদ্যোক্তা হওয়ার ব্যবসা মোটামুটি অল্প পুজিতে বেশ ভালো একটি ব্যবসা। আপনার যদি একটা নিজস্ব দোকান থেকে থাকে তাহলে আপনি খানিকটা বাড়তি আয়ের জন্য নগদ উদ্যোক্তা অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করার মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছে সেবা পৌঁছে দিতে পারেন এবং তার বিনিময়ে কমিশন হিসেবে লাভ করতে পারেন বেশ ভালো পরিমান টাকা।

নগদ ব্যবহারে নিরাপত্তা

ডিজিটাল লেনদেন ব্যবস্থার জনপ্রিয়তা বাড়ার সাথে সাথে বেড়েছে ফ্রড ও অসাধু লোকদের আনাগোনা। তাই অবশ্যই আপনি যদি নগদ ব্যবহার করতে চান তাহলে আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে এবং বেশ কিছু নিরাপত্তা মেনে চলতে হবে। কেননা নগদ কখনো কোন গ্রাহকের ভুলের দায়িত্ব নিতে রাজি নয়। তাই অবশ্যই আপনাকে নগদ কর্তৃক প্রদত্ত নির্দেশনা সমূহ মানতে হবে।

  • নগদ কখনো গ্রাহকের কাছে ওটিপি অথবা একাউন্টের পিন নাম্বার জানতে চাইবে না। তাই আপনার কাছে কেউ যদি এ সংক্রান্ত কোনো প্রশ্ন করে থাকে তাহলে তাদের পাল্লায় পা বাড়াবেন না বরং সতর্কতা অবলম্বন করবেন এবং অবশ্যই ওটিপি ও পিন নাম্বার গোপন রাখবেন। 
  • ১৬১৬৭ বা ০৯৬ ০৯৬ ১৬১৬৭ – শুধুমাত্র এই দুইটি নাম্বার থেকেই নগদ ব্যবহারকারীদের সাথে যোগাযোগ করে। বাকি কোনো নাম্বার থেকে কলের মাধ্যমে কোনো নির্দেশনা পেলে মনে করবেন সেটি ভুয়া। 
  • এছাড়াও নগদ সংক্রান্ত কোনো সমস্যা বা প্রশ্ন থাকলে কল করতে পারেন এই দুইটি নির্দিষ্ট নাম্বারে – ১৬১৬৭ অথবা ০৯৬ ০৯৬ ১৬১৬৭।

পরিশেষে: তো সুপ্রিয় পাঠক, আমাদের আজকের আলোচনা এ পর্যন্তই। যদি আপনি আমাদের এই আর্টিকেলটি থেকে এতোটুকু উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করবেন আর নিয়মিত লেটেস্ট পোস্টগুলো সবার আগে পেতে আমাদের কে ফলো করবেন। আল্লাহ হাফেজ।

আরো দেখুন:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here