বই লিখে টাকা ইনকাম করার উপায় | ই বুক লিখে যেভাবে টাকা আয় করা যায়: বই মানুষের সব সময়ের বন্ধু। একমাত্র বই কখনো কোন মানুষকে ভুল বোঝায় না এবং অসময়ে ছেড়ে যায় না। বলা যায় বই হচ্ছে সুসময়ে এবং দুঃসময়ের বন্ধু। যারা বই পড়তে ভালোবাসে তারা ভালো মনের মানুষ।

আর যারা বই লিখতে ভালোবাসে তারা ভালো প্রকৃতির মানুষ। একটা মানুষ তখন বই লিখতে পারে যখন সে বেশি বেশি বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারে। আমাদের মাঝে এমন অনেকেই রয়েছেন যারা অনেক অনেক বই লিখে থাকেন। কিন্তু বুঝে উঠতে পারেন না সেগুলো কিভাবে কাজে লাগাবেন!

তাই আজকের এ আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করব কিভাবে বই লিখে টাকা ইনকাম করার যায়? তো পাঠবৃন্দ চলুন আজকের এই আলোচনা থেকে জেনে নেই বই লিখে টাকা ইনকাম করার উপায়/আপনি কিভাবে ই-বুক লিখে টাকা আয় করতে পারবেন সে সম্পর্কে।

বই কি? ই বুক বলতে কী বোঝায়?

বই শব্দের সমার্থক শব্দ হচ্ছে– গ্রন্থ, কিতাব, পুথি, পুস্তক, পাণ্ডুলিপি সহ প্রভৃতি। যাকে ইংরেজিতে বলা হয় বুক (Book). বইয়ের নির্দিষ্ট কোন সংজ্ঞা নেই। তবে বলা যায় যা মানুষের চিন্তা ধারাকে পরবর্তী প্রজন্মের নিকট পৌঁছে দেয় তাই হচ্ছে বই। বইয়ের তাৎপর্য অত্যন্ত গভীর এবং বিস্তৃত।

অপরদিকে ই-বুক হচ্ছে ইলেকট্রনিক বই। যেটা প্রকাশ করা হয় ডিজিটাল মাধ্যমকে কেন্দ্র করে। বর্তমান পৃথিবী এখন অনেক বেশি এগিয়ে। আর এর কারণ হচ্ছে প্রযুক্তির উন্নয়ন। ই-বুক বলতে সেই সব বইকে বোঝানো হয় যেগুলো ডিজিটাল আকারে প্রকাশ পায়। ই-বুক আবার ডিজিটাল বুক অথবা ই সংস্করণ নামেও পরিচিত। মূলত অনলাইনের মাধ্যমে কোন বই প্রচার বা সম্পাদন করা হলে সেটা ই-বুক হিসেবে পরিগণিত।

যে বইগুলো মূলত অনলাইনের মাধ্যমে মানুষকে পড়তে দেওয়ার সুযোগ তৈরি করে দেয় বা বিক্রি হয়ে থাকে অনলাইনের মাধ্যমে। বাণিজ্যিকভাবেও সেটা প্রস্তুত করা হয় ডিজিটাল মাধ্যমকে কেন্দ্র করে। আমরা মূলত বিভিন্ন প্লাটফর্মে গিয়ে হাতে থাকায় স্মার্টফোন ব্যবহার করে বা কম্পিউটারের সাহায্যে যে বইগুলো সার্চ করে পড়ি সেগুলো ই-বুক এর অন্তর্ভুক্ত। 

বই লিখে টাকা ইনকাম 

বই লিখে টাকা ইনকাম করা সম্ভব এটা প্রত্যেকেরই জানা। বই মূলত অনলাইন অফলাইন দুইভাবে মানুষকে ইনকামের রাস্তা তৈরি করে দিতে পারে। আমরা যখন কোন বই দোকানে গিয়ে কিনি সেটা অফলাইনে কেনাবেচার মধ্যে পড়ে আর যখন অনলাইনে অর্ডারের মাধ্যমে কিনে তখন সেটা অনলাইন মাধ্যমে কেনাবেচার মধ্যে পড়ে। আর আমার যে মাধ্যমে বইটা কিনি না কেন, তার বিনিময়ে অবশ্যই টাকা পে করতে হয়। ঠিক এই কারণে যদি কেউ বই লেখে এবং সেটা বিক্রি করে তাহলে অবশ্যই বই লিখে টাকা ইনকাম করা সম্ভব। 

বই লিখে অনলাইনে টাকা ইনকাম

পৃথিবীর বেশিরভাগ মানুষ এখন অনলাইনের ওপর নির্ভরশীল। আর থেকে কারণে তারা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বই কেনাকাটা করে অনলাইনে। এজন্যই মূলত ইবুক থেকে আয় করা একটা খুবই জনপ্রিয় পদ্ধতি হয়ে উঠেছে বর্তমানে। আপনি যদি একজন ভালো লেখক হয়ে থাকেন আর বই লিখতে পারেন তাহলে আপনার জীবন বদলে যাবে। কারণ বর্তমানে এ বুক একটি চলমান প্রক্রিয়া। আর এটা সবারই কম বেশি জানা বই যত বিক্রি হবে তত বেশি মুনাফা পাওয়া সম্ভব হবে। তাই আপনি যদি ই-বুক লিখে আয় করতে চান অর্থাৎ বই লিখে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে আপনার জন্য সুফল বয়ে নিয়ে আসবে ডিজিটাল মাধ্যম।

বই লিখে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার কলাকৌশল

বর্তমান সময়ে মানুষ সব থেকে বেশি সময় ব্যয় করে ফেসবুকে। তাই বই লিখে অনলাইনে বেশি পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে চাইলে অবশ্যই নিজেদের একটি পোর্টফলিও তৈরি করতে হবে। আপনি যদি কোন বই লেখেন তাহলে সেটা অবশ্যই প্রচার করতে হবে। দেখুন আপনি অনেক ভালো মানের বই লিখে রাখলেন কিন্তু অডিয়েন্স জানলোই না যে আপনি বই লিখে রেখেছেন। কারণ জানবে কিভাবে? অডিয়েন্স তো তখন কিছু জানতে পারবে যখন আপনি তাদের সামনে তুলে ধরবেন। আর যখন অডিয়েন্স আপনার বই সম্পর্কে অল্প বিস্তার কিছু ধারণা লাভ করতে পারবে তখন আপনি আপনার বইটি কেনার আগ্রহ প্রকাশ করবে। তাই বই লিখে টাকা ইনকাম করতে চাইলে আপনাকে যা যা করতে হবে সেগুলো হচ্ছে

  • নিজের বিশ্বস্ত একটি ফেসবুক একাউন্ট
  • একটি প্রফেশনাল ফেসবুক পেজ
  • ওয়েবসাইট
  • ইউটিউব চ্যানেল

তবে এর মধ্যে সবচেয়ে কার্যকরী একটি পদ্ধতি হচ্ছে ফেসবুক পেজ। দেখুন আপনার যদি একটি facebook পেজ থাকে এবং তাতে আপনার ফ্যান ফলোয়ারের সংখ্যা অনেক থাকে তাহলে আপনার বই সম্পর্কে অনেকেই জানবে। কারণ বর্তমানে ফেসবুকের ফেসবুক পেজ ফিচারটি অনেক বেশি জনপ্রিয়।

আপনি যদি আপনার ফেসবুক পেজে আপনার লেখা বইটি সম্পর্কে ছোট ছোট ক্লিপ তৈরি করেন, অথবা শট দু একটা লাইন শেয়ারিং এর মাধ্যমে মানুষকে জানাতে পারেন আপনার বইটি কি ধরনের? তাহলে খুব সহজে আপনার বইয়ের রিচ বেড়ে যাবে। যার ফলে অল্প সময়ের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে আপনার লিখিত বই। আর কেনাবেচা বাড়লে আপনি তো বই লিখে অবশ্যই মোটা পরিমাণ টাকা ইনকাম করবেন এটাই স্বাভাবিক। 

কিন্তু হ্যাঁ youtube, ওয়েবসাইট, এই দুটি প্ল্যাটফর্মও আপনার বইয়ের পরিচিতি বাড়াতে অনেক বেশি কার্যকরী। ভিডিও শেয়ারিং মাধ্যমিক হিসেবে কিন্তু ইউটিউব পূর্ব থেকেই জনপ্রিয়। তাই আপনি যদি আপনার বই কোন চ্যানেলের মাধ্যমে প্রমোট করে নেন অথবা নিজস্ব টি চ্যানেল ক্রিয়েট করে তাতে আপনার বই সংক্রান্ত কোন ভিডিও আপলোড করেন, তাহলেও কিন্তু আপনার বই সম্পর্কে মানুষ জানতে পারবে এবং সেটা কেনার আগ্রহ প্রকাশ করবে।

আর এখানে আপনি শুধু আপনার বই বিক্রি করে নয় বই বিক্রির পাশাপাশি আপনার চ্যানেল যদি মনিটাইজেশন পায় তাহলে ইউটিউব থেকেও ইনকাম করতে পারবেন। তাছাড়াও বন্ধু মহল বা আপনার পরিচিত রিলেটিভ এর মধ্যে বই সম্পর্কে জানাতে আপনার ফেসবুক প্রোফাইল বেশ কাজে দেবে।

এক কথায় আপনি যদি বই লিখে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে আপনার বইটি বিক্রি করার জন্য মানুষের মাঝে বই সংক্রান্ত ইন্টারেস্টিং বিষয়গুলো ছড়িয়ে দিতে হবে। অনলাইনের মাধ্যমে আপনি বই বিক্রি করতে পারবেন এবং ইনকাম করতে পারবেন মোটা পরিমান টাকা। 

বই লিখে ইনকাম করার অনলাইন মাধ্যম

দেখুন আপনি যদি চান তাহলে আপনার লেখা বই কোন ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষের কাছে বিক্রি করতে পারবেন। এখন ফেসবুকে এমন অনেক গ্রুপ রয়েছে যেখানে বিভিন্ন স্ক্রিপ্ট বা লিখিত বই কেনাবেচা হয়। তাই আপনি যদি চান তাহলে আপনার নির্ধারণ করা মূল্যে খুব অল্প সময়ের মধ্যে আপনার ক্লায়েন্ট এর কাছে বইটি বিক্রি করতে পারবেন। আর এভাবে নিয়মিত বই লিখে আপনি ইনকাম করতে পারবেন টাকা।

তো পাঠক বন্ধুরা এক কথায় আপনি যদি অনলাইনে বই বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে আপনাকে নিজের একটা পোর্টফলিও তৈরি করে নিতে হবে। যাতে আপনার বই সম্পর্কে মানুষ জানে এবং আপনার বইয়ের মূল্য কত এবং কি কেউ যদি আপনার বইটি অর্ডার করে তাহলে কতক্ষণের মধ্যে সে রিসিভ করতে পারবে ইত্যাদির সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য।

তো আমাদের আজকের আলোচনা এই পর্যন্তই। অবশ্যই আপনি যদি আমাদের ওয়েবসাইটে আজ নতুন এসে থাকেন তাহলে সাবস্ক্রাইব করতে ভুলবেন না। নিয়মিত টিপস ট্রিকস ও আর্নিংস রিলেটেড কনটেন্ট পেতে আমাদের সাথে থাকুন। আল্লাহ হাফেজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here