অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম

অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়মঃ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির উন্নয়নের সাথে সাথে এখন মানুষ অনেক বেশি আধুনিক। তাই যেকোনো কাজ হাতে থাকা মোবাইল ফোন অথবা কাছে থাকা ল্যাপটপের সাহায্যেই করে ফেলতে চায়। এজন্য বর্তমানে ট্রেনের শতভাগ টিকিট গুলো অনলাইনেই ক্রয় বিক্রয় হয়ে থাকে। আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সাথে আলোচনা করব অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম সম্পর্কে। সেই সাথে সাজেস্ট করব এমন কয়েকটি মোবাইল অ্যাপস যেগুলোর সাহায্যে আপনি খুব সহজেই কোন রকম ঝামেলা ছাড়া টিকিট বুক করতে পারবেন।

আজকের আলোচনার বিষয়:

  • অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম

  • ট্রেনের টিকিট কাটার নতুন নিয়ম

  • ট্রেনের টিকিট কেনার নতুন পদ্ধতি

  • মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

  • অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার সর্বশেষ নিয়ম

  • ভারতীয় রেলের টিকিট বুকিং এর নতুন নিয়ম

  • অনলাইনে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কাটার সময়

  • বিকাশে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

  • টিকিট চেক করার উপায় এবং

  • টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম

তাহলে প্রিয় পাঠক পাঠিকা, চলুন কথা না বাড়িয়ে সরাসরি মূল আলোচনা-পর্ব শুরু করি আর জেনে নেই, অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম বাছাই করা কয়েকটি মোবাইল অ্যাপস গুলো সম্পর্কে।

অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম কি?

অনলাইনে টিকিট কাটার জন্য অবশ্যই কাছে একটি স্মার্ট ফোন থাকতে হবে। সেই সাথে লাগবে ভালো ইন্টারনেট ব্যবস্থা। আপনি যদি অনলাইনে টিকিট কাটতে চান তাহলে আপনাকে কয়েকটি স্টেপ ফলো করতে হবে।

আর তার মধ্যে প্রথম ও প্রধান স্টেপ হচ্ছে, আপনার স্টেশন ও গন্তব্য অনুযায়ী নির্দিষ্ট তারিখের ট্রেন গুগলে সার্চ করা। আপনি যখন এই প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করবেন পরবর্তীতে কিছু ইনফরমেশন পূরণ করতে হবে এবং সবশেষে আসন বাছাই করে অনলাইনে পেমেন্ট করে টিকিং বুকিং কনফার্ম করতে হবে। আর এই সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া হবে অনলাইনের মাধ্যমে, আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোন অথবা কাছে থাকা ল্যাপটপের সাহায্যে।

মোবাইলে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

অনলাইনে রেলের টিকিট বুকিং করাটা অনেকটাই কঠিন হয়ে পড়ে। তবে আপনি যদি IRSTC ওয়েবসাইটের সাথে পরিচিত হয়ে থাকেন তাহলে ব্যাপারটা অনেকটাই সহজ হয়ে যাবে আপনার কাছে। কারণ ইন্ডিয়ান রেলওয়ে ক্যাটারিং এন্ড ট্যুরিজম কর্পোরেশন ওয়েবসাইটটি প্রথমবারের জন্য ব্যবহার করতে অনেকটাই জটিল মনে হয়। এর এত এত ইনফরমেশন রয়েছে যেগুলো গ্রাহকদের জন্য ভালো তেমনি অন্যদিকে তার সাধারণ ব্যবহারকারীকে বিভ্রান্ত করে তোলে।।

তবে তাড়াহুড়ো না করে বা অধিক বেশি বিরক্ত প্রকাশ না করে আপনি কয়েকটা স্টেপ ফলো করলে খুব সহজেই মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নেই মোবাইলে রেল টিকিট কাটার ধাপগুলো।

প্রথম ধাপ: IRCTC ওয়েবসাইটে সর্বপ্রথম ভিজিট করুন।

দ্বিতীয় ধাপ: আপনার অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করুন। তবে হ্যাঁ আপনি যদি কোন একাউন্ট পূর্বে খুলে না থাকেন মানে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে সাইন আপ প্রক্রিয়ার সাহায্যে রেজিস্টার করুন। পরবর্তীতে লগ ইন এ ক্লিক করুন।

তৃতীয় ধাপ: এ পর্যায়ে এসে আপনি ওয়েবসাইটের বাঁদিকে দৃষ্টি দিন এবং সেখানে থাকা স্টেশন বা আপনার গন্তব্যস্থল নির্বাচন করুন। যাত্রার তারিক উল্লেখ করুন।

চতুর্থ ধাপ: তারিখ ও গন্তব্যস্থল নির্বাচনের পরবর্তীতে সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন।। এ পর্যায়ে আপনি উল্লেখিত রূপে উপলব্ধ সমস্ত ট্রেনগুলোর নাম ও সময়ের তালিকা দেখতে পাবেন।

পঞ্চম ধাপ: এ পর্যায়ে আপনার সবচেয়ে উপযুক্ত ও আপনি কোন ক্লাসে ভ্রমণ করতে চান সেগুলো সিলেক্ট করুন।

ষষ্ঠ ধাপ: আপনি যদি ওয়েটিং লিস্টে টিকিট বুক করতে চান তাহলে ক্লাসে ক্লিক করুন। এতে করে আপনার সামনে নতুন একটা উইন্ডো খুলে যাবে। সেখানে আপনি আপনার টিকিটের মূল্যসহ ওয়েটিং সংখ্যা দেখতে পাবেন। আর সেখানে আপনাকে বুক বাটনে ক্লিক করতে হবে।

সপ্তম ধাপ: আপনি যখন বুক বাটনে ক্লিক করবেন পরবর্তীতে টিকিটের বিবরণের সারাংশ সহ আরো কিছু নতুন উইন্ডো খুলবে আপনার সামনে। আর সেখানে মেক পেমেন্ট এর বিকল্প দেবে। আর এই লিংকে ক্লিক করলে আপনাকে আইআরসিটিসি ওয়েবসাইটের একটা নতুন পেজে নিয়ে যাওয়া হবে। আপনাকে এক্ষেত্রে পূরণ করতে হবে ডেভিড ক্রেডিট কার্ড ইন্টারনেট ব্যাংকিং ইত্যাদি কিছু মোবাইল ব্যাংকিং মাধ্যম। যেটা আপনার পছন্দ সেটা সিলেক্ট করতে হবে অর্থাৎ পেমেন্ট মোডে ক্লিক করতে হবে।

অষ্টম ধাপ: আপনার পেমেন্ট কার্যক্রম সম্পূর্ণ হলে এ পর্যায়ে আপনার কাছে আইআরসিটিসি ওয়েবসাইট হোমপেজে পাঠিয়ে দেবে এবং আপনার পেমেন্ট হয়ে গেছে সেই সাথে ট্রেনের টিকিট কাটা হয়ে গেছে এটা কনফার্ম করবে।

ব্যাস হয়ে গেল। তবে হ্যাঁ আপনি এ সময় আপনার অনলাইন রেলের টিকিট কাটা অবস্থাতেই টিকিটের পৃন্ট আউট নিতে পারেন অথবা অনলাইনেও রেখে দিতে পারেন।

অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম ও সঠিক পদ্ধতি

বাংলাদেশ রেলওয়ে কে সবচেয়ে নিরাপদ এবং সাশ্রয়ী পরিবহন ধরা হয়ে থাকে। তাই যাতায়াতের জন্য আপনি যদি অনলাইনে টিকিট কাটতে চান তাহলে অবশ্যই সঠিক পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। ইতিমধ্যে আমরা আপনাদেরকে একটি প্রক্রিয়া বিস্তারিত খুলে বলেছি। এবার আমরা অনলাইনে টিকিট কাটার কয়েকটি নিয়ম তুলে ধরব যেগুলোর মাধ্যমে আপনি যে কোন টিকিট কাটতে পারবেন।

এক কথায় আপনি অনলাইনে টিকিট কাটতে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন এবং যা যা করবেন সেগুলো হলো:

  • অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করবেন

  • মোবাইল ভেরিফাই করবেন

  • একাউন্টে লগ ইন করবেন

  • গন্তব্যস্থল এবং কোন ট্রেন কোন সময় ট্রেন সেটা গুগলের সার্চ করবেন

  • পরবর্তীতে ট্রেন ও সিট বাছাই করবেন

  • আপনার অর্থাৎ যে বা যারা টেনে পরিবহন করবে সেই যাত্রীর যাবতীয় তথ্য উপস্থাপন করবেন

  • টিকিটের মূল্য পরিশোধ করবেন

  • নিজের কাছে একটা ট্রেনের টিকেট প্রিন্ট রেখে দেবেন।

ব্যাস এই কয়েকটি কার্যক্রমের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই অনলাইনে কোন রকমের ঝামেলা ছাড়াই কারো কোন সাহায্য ছাড়াই নিজে নিজে ঘরে বসে টিকিট কাটতে পারবেন। তবে সব সময় সতর্কতার সাথে সবকিছু পড়বেন এবং ইনফরমেশন গুলো পূরণ করবেন।

বিকাশে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

আপনি যদি চান তাহলে বিকাশেও ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন। সরাসরি ওয়েব সাইটে গিয়ে কাটা এবং বিকাশ থেকে ট্রেনের টিকিট কাটা দুটো একই প্রক্রিয়ায় সম্পূর্ণ হয়। তবে অবশ্যই সতর্কতার সাথে এবং সবকিছু পড়ে তারপর নিজস্ব সঠিক ইনফরমেশন দিয়ে টিকিট কাটবেন।

ভারতীয় রেলের টিকিট বুকিং এর নতুন নিয়ম

ভারতীয় রেলের টিকিট কাটা টা কিছুটা ঝামেলা জনক। তবে কবিদের কারণে দীর্ঘ সময় ধরে টিকিট বুক করেননি এমন যাত্রীদের জন্য রেলওয়ে নতুন নিয়ম নিয়ে এসেছে। তাই আর ctc ওয়েবসাইট থেকে টিকিট অনলাইনে বুক করতে চাইলে যাত্রীদের প্রথমে তাদের মোবাইল নম্বর এবং ইমেইল আইডি যাচাই করা হবে। এবং তা যদি গ্রহণযোগ্য হয় তবে তারা ঠিক পেতে পারবেন। এটা শুধুমাত্র নতুনদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য যারা পুরাতন তাদের এই সমস্যা পোহাতে হবে না। এই ওয়েবসাইটে জাতির অ্যাকাউন্ট যাচাই করার জন্য আইআরসিটিসি পোর্টালে লগইন করা হয়।

নতুন একটা উইন্ডো খুলে। তারপর সেখানে রেজিস্টার্ড ইমেইল ও মোবাইল নম্বর লেখার স্থানে লিখতে হয় এবং বাঁদিকে এডিট ও ডানদিকে ভেরিফিকেশনের অপশন থাকে। এ দুটির মধ্যে এডিট বিকল্প কে নির্বাচন করে নাম্বার বা ইমেইল পরিবর্তন করতে পারবেন আর ভেরিফিকেশন বিকল্প নির্বাচন করলে আপনার নাম্বারে একটা ওটিপি যাবে। আর এতে করে আপনি খুব সহজেই আপনার অ্যাকাউন্টটি যাচাই করতে পারবেন। আর মেইলের মাধ্যমে যদি যাচাই করতে চান তাহলে এই প্রক্রিয়াটাও সম্পূর্ণ একই রকম শুধু ফোন নাম্বারের কাছে দিতে হবে আপনার জিমেইল।

বাংলাদেশে ট্রেনের টিকিট কেনার শর্তাবলী

বাংলাদেশ রেলওয়ে টিকিট কেনার ক্ষেত্রে অবশ্যই কয়েকটি শর্ত মেনে চলতে হবে। আর এটি বাংলাদেশ রেলওয়ে টিকেটিং সার্ভিস সেন্টারে উল্লেখ করেছে। তাই অবশ্যই সেই সকল শর্তাবলী মেনে আপনি আপনার টিকিট কাটার কার্যক্রম সঠিক ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করবেন।

ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপস

বর্তমানে বাংলাদেশ রেলওয়ে ট্রেনের টিকেট কাটার অ্যাপস এখনো পর্যন্ত চালু হয়নি। তবে অ্যাপ ছাড়াই মোবাইল থেকে গুগল ক্রোম ব্রাউজার করে e-ticket.railway.gov.bd ভিজিট করে ট্রেনের টিকিট বুকিং করতে পারবেন। তবে এদের মধ্যে ভারতে কয়েকটি ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস চালু হয়েছে।

জেনে রাখা ভালো তাই আপনাদেরকে এ সম্পর্কে অবগত করব। ট্রেনের টিকিট কাটার ভারতীয় মোবাইল অ্যাপস গুলো হলো:

  • ixigo

  • IRCTC Rail Connect

  • ConfirmTkt

  • RedRail

  • makemytrip

সুপ্রিয় দর্শক আজকের আর্টিকেলটি এখানে শেষ করছি। যদি আপনারা উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন সেইসাথে পছন্দ হলে অবশ্যই অন্যের সাথে শেয়ার করবেন। আর টিকিট কাটতে গিয়ে যদি কোন সমস্যার সম্মুখীন হন আমাদের কাছে সেটাও জানাতে ভুলবেন না। সবাই ভাল থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

About Shanto Khan

Tech Shanto is a Bangladeshi YouTuber and Freelancer who loves to share his experience with all. If you want to learn awesome tips and tricks with Tech Shanto then stay connected.

View all posts by Shanto Khan →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *